শত মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত খোদেজা

0
45
খোদেজা বেওয়া

বৃদ্ধা খোদেজা বেওয়ার চিকিৎসার জন্য প্রতি মাসে যে ওষুধ লাগবে তা কেনার খরচ দেয়ার কথা জানিয়েছেন পাবনার পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান। এদিকে সারাদেশ থেকে কয়েকশ মানুষ ফোন করে খোদেজা বেওয়ার সর্বশেষ অবস্থা জানতে চেয়েছেন। অনেকে তার জন্য মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অর্থ পাঠিয়েছেন। বেশ ক’জন প্রবাসী দেশে থাকা তাদের স্বজনদের মাধ্যমে এ বৃদ্ধার জন্য অর্থ পাঠিয়েছেন।

এমনকি মাধ্যমিকে পড়া একজন ছাত্রীও ২০০ টাকা দিয়ে মানবিক কাজে সম্পৃক্ত হয়েছেন। সবার ভালোবাসায় হাসি ফুটেছে অসহায় বৃদ্ধা খোদেজার মুখে। জয় হয়েছে মানবতার।

পাবনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি আখতারুজ্জামান আখতার বলেন, আগে মায়ের জন্য চোখের ওষুধ, ড্রপ কিনতাম। এখন তো আর কেনার সৌভাগ্য হয় না। কারণ পাঁচ বছর হলো ‘মা হারা’ হয়েছি। সেই চোখের ড্রপটি এখন এই বুড়ি মায়ের জন্যই কিনে দেব। চিকিৎসক দেখিয়ে তার চোখের ওষুধ ও চশমা কেনার ব্যবস্থাও তিনি করবেন বলে জানান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক জিএস গোলাম রাব্বানী ফোন করে জানিয়েছেন তারাও আছেন খোদেজা বেওয়ার পাশে।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হায়দার আলী, এটিএন বাংলা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক বরকত উল্লাহ সুজনসহ দেশের অনেক মানুষ মোবাইলে এ বৃদ্ধার খোঁজ নিয়েছেন এবং অর্থ পাঠিয়েছেন। অনেকেই তাকে সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়েছেন।

এ সময় সেখানে সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জামাল আহমেদ এবং স্থানীয় দুই ইউপি সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তার জন্য জমা হওয়া আরও প্রায় ১০ হাজার টাকা খোদেজা বেগমের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে (খোদেজার সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর ৩৯৩৯৯০১০০০১৩৫৮, রূপালী ব্যাংক, বনগ্রাম শাখা, পাবনা) জমা দেয়া হয়েছে। আরও কেউ আগ্রহী হলে ব্যাংকের এই হিসাব নম্বরে অর্থ সহায়তা করতে পারবেন।