শততম টেস্টে রুটের হ্যাটট্রিক সেঞ্চুরি

0
27
শততম টেস্টে রুটের হ্যাটট্রিক সেঞ্চুরি

দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরির মাধ্যমেই নিজের শততম টেস্টটি স্মরণীয় করে রাখলেন জো রুট। টেস্ট ইতিহাসে নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে অনন্য এই কীর্তি ছুঁলেন তিনি।

অমানবিক ফর্ম নিয়েই ভারতে পা রাখেন রুট। শ্রীলঙ্কায় দুই ম্যাচে টানা দুই সেঞ্চুরিতে করেন ৪২২ রান। রানবন্যা অব্যাহত রেখে সেঞ্চুরির হ্যাটট্রিকই করে ফেলেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ধ্রুপদী ব্যাটিংয়ে দিন শেষে অপরাজিত থাকেন ১২৮ রানে। ১৯৮ বলে যা সাজিয়ে রাখেন ১৪ চার ও একটি ছয়ের সাহায্যে।

আজ দ্বিতীয় দিনে রানের মাত্রাটা আরও বাড়িয়ে নেওয়াই রুটের মূল লক্ষ্য, ‘শততম টেস্টে সেঞ্চুরি পাওয়াটা স্পেশাল তবে আমি আশা করছি কাল (আজ) আরও কিছু রান করার বাকি আছে যা প্রথম ইনিংসে যথেষ্ট রান তুলতে সাহায্য করবে। সত্যিই আজকের দিনটি সুন্দর ছিল।’

রুটের ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা দিনটি স্বাভাবিকভাবেই হতাশায় কাটিয়েছে ভারত। টস হেরে চেন্নাইতে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে ৩ উইকেটে ২৬৩ রান খরচ করে ইতি টানে বিরাট কোহলির দল।

চোয়ালবদ্ধ ব্যাটিংয়ে ভারতীয় বোলারদের নাভিশ্বাস তুলে ছাড়েন রুট ও সিবলি। তবে দিনের শেষ লগ্নে ২০০ রানের জুটি ভেঙে দলকে স্বস্তি এনে দেন জসপ্রীত বুমরাহ। ঘরের মাটিতে নিজের প্রথম টেস্ট খেলতে নামা এই পেসার সাজঘরে পাঠান ২৮৬ বলে ৮৭ করা সিবলিকে।

সকালের সময়টা অবশ্য ভালোই কেটেছে ভারতের। ইংলিশদের সাবধানী শুরুটা টেকেনি বেশি ক্ষণ। ৬৩ রানেই হারিয়ে ফেলে ২ উইকেট। ররি বার্নসকে রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও দুর্দান্ত রিভার্স সুইংয়ে ড্যান লরেন্সকে ফেরান বুমরাহ।

বিপর্যয় সামলে এরপর সিবলিকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন রুট। কোনো রকম ভুলের সুযোগ দেননি তারা। সিবলি ধীরেসুস্থে খেললেও নিজের স্বভাবমতো খেলতে থাকেন রুট। তাই তো পরে এসেও ১৬৪ বলে ক্যারিয়ারের ২০ তম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। এই সেঞ্চুরিকে আরও অনেক দূর নিয়ে যাবেন সে রকম প্রত্যাশাই করছে তার দল।