বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেল ভারতের তৈরি কোভ্যাক্সিন

0
41
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেল ভারতের তৈরি কোভ্যাক্সিন
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেল ভারতের তৈরি কোভ্যাক্সিন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেয়েছে ভারতের তৈরি করোনার ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সিন। আবেদনের প্রায় সাত মাস পর বুধবার অনুমোদন কোভ্যাক্সিন।

দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পাওয়ায় ভারতের এই টিকা এখন অন্যান্য দেশেও অনুমোদন পাবে। এছাড়া যেসব ভারতীয় এই টিকা নিয়েছেন বা নেবেন; তারা বিদেশ সফরে গেলে আর কোয়ারেন্টাইন পালন অথবা করোনার অন্যান্য বিধি-নিষেধের আওতায় পড়বেন না।

সংস্থাটি ফার্মসিউটিক্যাল কোম্পানি ভারত-বায়োটেকের তৈরি এই ভ্যাকসিনকে তালিকাভুক্ত করার পাশাপাশি জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদনও দিয়েছে। এর ফলে এই ভ্যাকসিন গৃহীতাদের বহির্বিশ্বে আর কোয়ারেন্টাইন কিংবা অন্য কোনো বিধিনিষেধের মুখোমুখি হতে হবে না। 

এ ব্যাপারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার টুইটারে এক বিবৃতিতে জানায়, ভারত বায়োটেকের তৈরি ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সিন জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে ডব্লিউএইচও।

গত এপ্রিলে কোভ্যাক্সিনের জরুরি ব্যবহারের জন্য সংস্থাটির অনুমোদন চেয়ে অবেদন করেছিল ভারত বায়োটেক। তবে জুলাইয়ে এ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করে ভারত বায়োটেক। দীর্ঘ পরীক্ষানিরীক্ষা শেষে প্রায় সাত মাস পর ভ্যাকসিনটি ব্যবহারের অনুমোদন দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

ভারত বায়োটেক বলছে, তাদের তৈরি টিকা উপসর্গযুক্ত করোনা প্রতিরোধে ৭৭ দশমিক ৮ শতাংশ কার্যকর। এছাড়া করোনার অতি-সংক্রামক ধরন ডেল্টার বিরুদ্ধে ৬৫ দশমিক ২ শতাংশ সুরক্ষা দিতে পারে কোভ্যাক্সিন। হায়দরাবাদের এই কোম্পানি বলেছে, তারা কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় অর্থাৎ শেষ ধাপের পরীক্ষায় পাওয়া কার্যকারিতার তথ্য চূড়ান্ত বিশ্লেষণ শেষ করেছে।

কোভিশিল্ড, কোভ্যাক্সিন ছাড়াও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখন পর্যন্ত মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ফাইজার, জনসন অ্যান্ড জনসন, মডার্না এবং চীনের সিনোফার্মের টিকার অনুমোদন দিয়েছে।