নবসাজে ফাগুন হাওয়ায় উদাস হয়েছে মন

0
70
নবসাজে ফাগুন হাওয়ায় উদাস হয়েছে মন
নবসাজে ফাগুন হাওয়ায় উদাস হয়েছে মন

ফাগুনের বাসন্তী হাওয়ায় উদাসী মন ভবঘুরে হয়েছে আজ। নব মুহূর্তে আনচান হৃদয় ছুটতে চায় মনের মানুষের পেছনে। পায়েলের রুমঝুম, ভ্রমরের গুনগুন, কোকিলের কুহু কুহু ডাকে মনকে করে ব্যাকুল। ফাগুন আর ভালোবাসা দিবসের লালে মাখামাখি এবারের বসন্ত। আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি। বিশ্ব ভালবাসা দিবস। একই সাথে আজ পয়লা ফাল্গুন। ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন।

আমরা রঙিন পোশাকে বসন্তবরণ করি। সাধারণত বাসন্তী, হলুদ, লাল পোশাক পরে এদিন উৎসব আয়োজন হয়। পাশের দেশ ভারতে সাদা পোশাকে বসন্ত বরণ হয়। বুলগেরিয়ায় মার্চের ১ তারিখে বসন্ত ফিরে আসার দিনটি পালন করা হয়। লাল ও সাদা সুতায় তৈরি ছোট দুটি পুতুল বানিয়ে পরে থাকে প্রায় মাসজুড়ে।

বসন্তের প্রথম আভাস পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফলের গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয় শুভ কামনা হিসেবে। চেরি ব্লসম ফেস্টিভ্যাল জাপানের বসন্ত উৎসব। এই সামাজিক যোগাযোগের যুগে বিভিন্ন দেশের বন্ধুদের বসন্তের রাজ্যে বিচরণের ছবি এখন আমাদের সবারই চেনা।

ফাল্গুন নামটি এসেছে মূলত ফাল্গুনী নামের নক্ষত্র থেকে। খ্রিষ্টপূর্ব ১৫০০ সালের দিকে চন্দ্রবর্ষ ও সৌরবর্ষ উভয়ই মেনে চলা হতো। ফাল্গুন ছিল পূর্ণ চন্দ্রের মাস। ১৯৫০-১৯৬০ দশকেই আনুষ্ঠানিকভাবে পহেলা ফাল্গুন পালন শুরু হয়। সেসময় বাংলাদেশের জনগণ পাকিস্তানের সংস্কৃতি থেকে নিজেদের আলাদা করতে রবীন্দ্রসঙ্গীত শোনার পাশাপাশি বাঙালি নিয়মে পহেলা ফাল্গুন পালন শুরু করে। তারপর আকাশে বহিছে প্রেম, নয়নে লাগিল নেশা; কারা যে ডাকিল পিছে! বসন্ত এসে গেছে…!