দেশ এগিয়ে যাবে, জনগণের ওপর আমাদের ভরসা আছে

0
58
টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

“দেশ এগিয়ে যাবে, জনগণের ওপর আমাদের ভরসা আছে। জনগণ আমাদের পাশে আছে। বাংলাদেশকে জাতির পিতাই তো বলে গেছেন, কেউ দাবায় রাখতে পারবা না। কেউ দাবায় রাখতে পারবে না।”

— প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,  “দেশ এগিয়ে যাবে, জনগণের ওপর আমাদের ভরসা আছে। জনগণ আমাদের পাশে আছে। বাংলাদেশকে জাতির পিতাই তো বলে গেছেন, কেউ দাবায় রাখতে পারবা না। কেউ দাবায় রাখতে পারবে না।”

রবিবার (২৪ জুলাই) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০২২’ উদযাপন এবং ‘জাতীয় মৎস্য পদক-২০২২’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতুতে বাধা দিয়েছিল সে বাধা অতিক্রম করে এই সেতু নিজস্ব অর্থায়নে নির্মাণ করে বিশ্বকে আমরা এই বার্তা পৌঁছে দিয়েছি যে বাংলাদেশ পারে। আমরাও পারি। সবাই মাছে ভাতে, সবাই সুস্থ থাকুন। সুন্দর জীবন হোক। এই মৎস্য প্রক্রিয়াজাত করা বা এদিকে সবাই এগিয়ে আসুন।

তিনি বলেন, আমরা মাছে ভাতে বাঙালি। এই মাছে ভাতে বাঙালি হিসেবেই যেন আমরা থাকতে পারি। এখন মাছের কাটা একটা সমস্যা। অনেকে মাছ খেতে চায় না। কিন্তু প্রক্রিয়াজাত করলে এই কাটা কিন্তু নরম করে ফেলা যায় এবং খাওয়া যায়। সেটা খুব বেশি কঠিন না, এমনকি ঘরে ঘরে করতে পারেন। আপনারা যদি প্রেসার কুকারে মাছ এক ঘণ্টা ১০ মিনিট সেদ্ধ করেন, মাছের কিন্তু কাটা নরম হয়ে যায়।

মাছ মাছের মতোই থাকবে কিন্তু কাটা নরম হয়ে যাবে। আপনারা সেটা বাচ্চাদেরও খাওয়াতে পারবেন। এতে কোনো অসুবিধা হয় না। কাজেই এটা কিন্তু আমরা করি। একটু রেসিপিও দিয়ে দিলাম সঙ্গে। যাতে আপনাদের ঘরে কাটার সমস্যাটা না থাকে। বিশেষ করে ইলিশ মাছে একটু বেশি সময় লাগে, সমুদ্রের মাছ। অন্যান্য মাছ আরও কম সময়ে হয়ে যায়।

সরকার প্রধান বলেন, আমি বলছি যেটা ওটা হলো ঘরে। কিন্তু আমরা যদি এ ধরনের ইন্ডাস্ট্রি করি, এই যে প্রেসার দিয়ে মাছের কাটাগুলো নরম থাকবে, মাছ যেমন আছে তেমনই থাকবে। সেইভাবে যদি আমরা টিনজাত করতে পারি, প্রক্রিয়াজাত করতে পারি এবং দেশে-বিদেশে রপ্তানি করতে পারি, পৃথিবীর বহু দেশ এই মাছ কিন্তু নেবে।  

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, মাছের বিভিন্ন পণ্য আমরা তৈরি করে রপ্তানি করতে পারব। আমি মনে করি, আমাদের নতুন প্রজন্ম আরও এগিয়ে আসবে। তাতে কর্মসংস্থান যেমন হবে, দেশে বেকারত্ব দূর হবে। সেই সঙ্গে সঙ্গে দেশও রপ্তানিযোগ্য পণ্য পাবে। আর দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদাও মিটবে। কাজেই সেভাবেই আমাদের দেশকে আমরা আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারব বলে আমি বিশ্বাস করি।

অনুষ্ঠানে মৎস্য খাতে বিশেষ অবদানের জন্য সাতটি প্রতিষ্ঠানকে স্বর্ণপদক দেও