দেশজুড়ে আবার গণটিকাদান কর্মসূচি

0
30
দেশজুড়ে আবার গণটিকাদান কর্মসূচি
দেশজুড়ে আবার গণটিকাদান কর্মসূচি

“আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে দেশজুড়ে আবার গণটিকাদান কর্মসূচি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। গতকাল সোমবার কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, গত রোববার আমাদের মিটিং হয়েছে। আমাদের সিদ্ধান্তগুলো তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়কে জানানো হচ্ছে। খুব শিগগিরই টিকার জন্য নিবন্ধন প্রক্রিয়া চালু হলে নিবন্ধন করে টিকা নেওয়া যাবে।”

তিনি বলেন, কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসা কোভ্যাক্স সুবিধায় পাওয়া মডার্নার টিকা দেওয়া হবে দেশের ১২ সিটি করপোরেশন এলাকায়, আর চীন থেকে কেনা সিনোফার্ম দেওয়া হবে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে। তিনি জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। কিন্তু মাঝে কিছু দিন স্বল্পতার কারণে টিকাদান কার্যক্রম বন্ধ ছিল। কিন্তু কয়েকদিন আগে মডার্না ও সিনোফার্মের ৪৫ লাখ টিকা আমাদের হাতে এসেছে। এই টিকা দিয়ে আমরা আবার টিকাদান কর্মসূচি শুরু করতে যাচ্ছি। 

হাতে এখন দুই ধরনের ভ্যাকসিন রয়েছে। দেশে কয়েক দিন আগে মডার্না এসেছে ২৫ লাখ এবং সিনোফার্মের এসেছে ২০ লাখ, সঙ্গে আগে এসেছে প্রায় ১১ লাখ ডোজ। সব মিলিয়ে বেশ কিছু টিকা এখন হাতে রয়েছে।

তিনি জানান, মডার্নার টিকা টেম্পারেচার সেনসিটিভ। মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে রাখতে হয়। তাই এ টিকা দেওয়া হবে সিটি করপোরেশন এলাকায়। সিটি করপোরেশন এলাকার আওতায় থাকা সাধারণ মানুষ এই টিকার আওতায় আসবেন। আর সিনোফার্মের টিকা রাখা যায় ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। তাই জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সিনোফার্মের টিকা দেওয়া হবে। এ ছাড়া একই জায়গায় যদি দুই ধরনের টিকাদান কর্মসূচি চলেতাহলে কিছুটা সমস্যা তৈরি হতে পারে। তাপমাত্রার বিষয় তো রয়েছেই। সে কারণে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

৩৫ বছর বয়স হলেই সবাই নিবন্ধন করে টিকা নিতে পারবেন জানিয়ে শামসুল হক বলেন, ‘অগ্রাধিকার তালিকায় প্রথমে ১৮ ক্যাটাগরির মানুষ ছিল। এরপর সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষার্থী, প্রবাসী শ্রমিক, মেডিক্যাল-নার্সিং শিক্ষার্থীদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এবার এ তালিকায় কৃষক, শ্রমিক ও শিক্ষার্থী—এ তিন ক্যাটাগরির জনগোষ্ঠীর মানুষকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। তাই এদেরও এবার টিকাদান কর্মসূচির আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। কৃষক, শ্রমিকদের তালিকার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় এবং শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেওয়া হবে। তারা যে তালিকা দেবে, সে তালিকা অনুযায়ী টিকা দেওয়া হবে।’