ডাকবাক্সের আদলে নতুন ডাক ভবনে কী কী আছে

0
23
ডাকবাক্সের আদলে ডাক ভবন
ডাকবাক্সের আদলে ডাক ভবন

লাল ডাক বাক্স, তবে এটি চিঠি ফেলার জন্য নয়। নির্মাণ করা হয়েছে ডাক বিভাগের নতুন সদর দফতর হিসেবে। দেশে প্রথম কোনো ভবন নির্মাণ করা হলো এমন নান্দনিক ডিজাইনে, যা চিঠি ফেলার বাক্সের আদলে। ফলে গুলিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে ঢাকার প্রাচীনতম জিপিও। নতুন সদর দফতর হবে রাজধানীর আগারগাঁও।

পৌনে এক একর জায়গার উপর ৯১ কোটি ৭৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ডাক বিভাগের নতুন এ ভবন। ২০১৮ সালের ২০ মার্চ বাংলাদেশ ডাক অধিদপ্তরের সদরদপ্তর নামের এ প্রকল্পটি একনেকের অনুমোদন পায়। ডাকবাক্সের আইকনিক সিম্বল ডাকবাক্সের আদলে নকশা করা হয়েছে ভবনটির। নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে ২০১৯ সালে জুলাইয়ে।

লাল টুকটুকে ১৪ তলা এ ভবনে রয়েছে দুটি বেজমেন্ট। থাকছে সুসজ্জিত ও সমৃদ্ধ লাইব্রেরি, আধুনিক পোস্টাল মিউজিয়াম, সুপরিসর অডিটরিয়াম, ক্যাফেটরিয়া, ডে-কেয়ার সেন্টার, মেডিক্যাল সুবিধা, অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা এবং সার্বক্ষণিক ওয়াইফাইসহ অন্যান্য তথ্যপ্রযুক্তিগত সুবিধা। এছাড়া থাকছে বঙ্গবন্ধু কর্নার, মুক্তিযুদ্ধে বীর সন্তানদের কীর্তিগাথা ইতিহাস।

১৯৭১ সালে ২০ ডিসেম্বর বাংলাদেশ ডাক বিভাগের কার্যক্রম শুরু হলেও, রাজধানীর গুলিস্তানের জিপিও মোড়ের এই ভবনে ১৯৬২-৬৩ সালে অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু মোবাইল, ইন্টারনেটের যুগে পিছিয়ে থাকতে চায় না ডাক বিভাগ। এরই মধ্যে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ডাক বাক্সের আদলে দৃষ্টিদন্দন ডাক ভবন।

সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানের নতুন দৃষ্টিনন্দন স্থাপনা ডাক বিভাগের কর্মীদের নতুন করে উজ্জীবিত করবে। এর মধ্য দিয়ে হারিয়ে যাওয়া গতি ফিরবে ডাক বিভাগের।