সুখী থাকতে হলে, হতে হবে ‘মিতব্যয়ী’

0
29

চাহিদার যেন কোন অন্ত নেই।

একটি চাহিদা পূরণ হলেই দেখা দেয় আরেকটি চাহিদা। সময়ের সাথে সাথে এই চাহিদার পারদের মাত্রা যেন বাড়তেই থাকে। বিশেষত বর্তমান যুগের বেশীরভাগ মানুষের ধারণা হলো- যার যত বেশি আছে, সে তত বেশি সুখী!

আদতে বাস্তব পরিস্থিতি ও সত্য একেবারেই বিপরীত। আর এই সত্যকে যত দ্রুত মানুষ জানছে ও বুঝতে শিখছে, তত দ্রুতই রপ্ত করতে চাচ্ছে মিতব্যয়ী হবার দক্ষতা। স্বল্পব্যয়ী বা মিতব্যয়ী হয়ে ওঠা, দক্ষতার পাশপাশি বড় ধরণের গুণও বটে। মিতব্যয়ী হয়ে খুব সাদামাটা ও সাধারণভাবে আনন্দের সাথেই কাটিয়ে দেওয়া যায় নির্ঝঞ্ঝাট এক জীবন।

এদিকে মিতব্যয়ী হওয়া এতোটাও সহজ নয়। লোক দেখানো সামাজিকতা, পারিবারিক জীবন, নিজস্ব ভাবনা-চাহিদা, ক্রমাগত অ্যাডভার্টাইজমেন্টের যন্ত্রনা কোনভাবেই যেন মিতব্যয়ী হয়ে উঠতে দেয় না! এই সকল প্রতিকূলতাকে পেরিয়েও, মিতব্যয়ী হওয়া সম্ভব খুব চমৎকার ভাবেই। জেনে নিন সহজ তিনটি উপায়।

নিজেকে প্রশ্ন করুন

দোকানে কিংবা অনলাইনে কোন একটা পণ্য দেখে পছন্দ হয়ে গেছে। ভাবছেন পছন্দসই জিনিসটা চটজলদি কিনে ফেলা কোন ব্যাপারই না। কিন্তু একটু অপেক্ষা করুন। কোন একটি পণ্য কেনার আগে নিজেকে নিচের এই প্রশ্নগুলো করুন।

১. কেন এই পণ্যটি কেনা প্রয়োজন?

২. এই পণ্যটি ছাড়া বেঁচে থাকা কি কষ্টকর হয়ে যাবে?

৩. আমি কি এটা কেনার মতো যথেষ্ট সামর্থ্যবান?

৪. যে পণ্যটি কেনা হবে তার শেষ পরিণতি কি হতে পারে?

৫. এটা কি আমার জীবনের উপর কোন ইতিবাচক প্রভাব তৈরি করবে?

প্রশ্নগুলো উত্তর থেকেই আপনি জেনে যাবেন, পছন্দ হওয়া পণ্যটি আপনার কেনা উচিৎ হবে কী না।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Aug/28/1535455829593.jpg

তালিকা তৈরি করুন

কোন জিনিসগুলো আপনার প্রয়োজন, তার একটি নির্দিষ্ট তালিকা তৈরি করে ফেলুন। পছন্দ হয়েছে কিংবা ডিসকাউন্টে পাওয়া যাচ্ছে বলে একই রঙের কিংবা একই ডিজাইনের জামা আরেকটি কেনার কোন প্রয়োজন নেই। এমন কিছু কেনার তালিকা তৈরি করুন, যা আপনার নেই। যা আপনার প্রয়োজনে আসবে। কেনার পর অহেতুক ফেলে রাখতে হবে না।

উপকারী কিছু বই পড়ুন

বলা হয় বই মানুষের জীবনকে বদলে দিতে পারে। যা পুরোপুরি সত্য। একটি বই একজন মানুষের চিন্তাভাবনার ধরণ, ধ্যানধারণা ও জীবন চালানোর পরিকল্পনাকেও পরিবর্তিত করে দেওয়ার মতো ক্ষমতা রাখে। মিতব্যয়ী হতে নির্দিষ্ট কয়েকটি বই সংগ্রহ করে পড়া শুরু করুন। এমনই একটি বই হলো লেখিকা Francie Jay এর ‘The Joy of Less’. চমৎকার এই লেখিকার বইটি আপনাকে জানাবে ভালো থাকা ও আনন্দে থাকার জন্য বাড়তি জিনিসের কোন প্রয়োজন নেই। বরং স্বল্প জিনিসের মাঝেই রয়েছে আনন্দ।

এই বইটির পাশাপাশি আরো পড়তে পারেন Bea Johnson এর ‘Zero Waste Home’. এছাড়াও বইয়ের তালিকায় রাখতে পারেন ‘Simplify’ ও ‘The Power of Less’.

সকল কিছুর ঊর্ধ্বে একটা বিষয় অবশ্যই মনে রাখতে হবে। একদিন, এক সপ্তাহ কিংবা এক মাসের মাঝেই পরিপূর্ণভাবে মিতব্যয়ী হয়ে ওঠা সম্ভব নয়। এর জন্য প্রয়োজন ধৈর্য। তবে জীবনে পরিবর্তন আনার জন্য এই পদক্ষেপ গ্রহণ করলে অবশ্যই ইতিবাচক ফলাফল দেখা দেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.