যন্ত্রণাহীন প্রসব পদ্ধতিতে শিশুর জন্ম

0
89

অপরাজয়া ডেস্ক : সন্তানের জন্ম দিতে গিয়ে প্রসব বেদনায় কাতর হননি এমন মহিলা প্রায় নেই বললেই চলে। যে কারণে অনেক মহিলাই সিজার করতে স্বচ্ছন্দ বোধ করেন প্রসব যন্ত্রনা এড়াতে। কিন্তু উন্নত চিকিৎসা বিজ্ঞান সব সময়ই স্বাভাবিক প্রসবের উপর জোর দিয়েছেন। এই দুইয়ের মাঝে একটি সমাধান সুত্র অবশ্য ‘পেনলেস লেবার’ অর্থাৎ যন্ত্রনাহীন প্রসব। অথচ ১৬৬ বছরের পুরানো এই পদ্ধতি কয়েকটি কারণে সাধারণ মানুষের কাছে অচেনা হয়ে গিয়েছে।

কী এই যন্ত্রনাবিহীন প্রসব? চিকিৎসকরা বলেছেন, যন্ত্রনাহীন প্রসবের জন্য সুষুম্নাকান্দের (স্পাইনাল কর্ড) মধ্যবতি স্তর এপিডুরাল পর্যন্ত একটি ক্যাথিটার পৌঁছে দেওয়া হয়। তার মাধমে দীর্ঘ সময় ধরে ধীরে ধীরে আ্যনাস্থেশিয়া দেওয়া হয়। এই পদ্ধতিকে বলে কন্সস্ট্যন্ট আপিডুরাল আ্যনাস্থেশিয়া। এই প্রক্রিয়ার সম্পূর্ণ জ্ঞান থাকলে ও শুধু যন্ত্রণার অনুভুতি পাওয়া যায়না । ফলে সজ্ঞানে গর্ভবতী মহিলা চাপ দিয়ে স্বাভাবিক প্রসব করতে পারেন।

স্ত্রীরোগ চিকিৎসক সঞ্জীব মুখোপাধ্যায় বলেন, ব্যাথা উপশমের জন্য টানা ১২ ঘণ্টা আ্যনাস্থেশিয়া দিতে হয় এই পদ্ধতিতে ফলে স্বাভাবিক আ্যনাস্থেশিয়া সম্ভব নয়। তবে যথেষ্ট ভাল এই পদ্ধতির বাধা একটাই। একজন রোগীর জন্য কয়েকঘণ্টা নিযুক্ত থাকতে হবে একদল ডাক্তারকে। এ জন্য এই পদ্ধতির প্রচার পায় নি।

সম্প্রতি এই পদ্ধতিতে কাবেরী ভাওয়াল নামে এক মহিলা তাঁর দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম দিলেন শহরের এক বেসরকারি হাসপাতালে। যন্ত্রণাহীন এই প্রসবের সাক্ষী থাকলেন স্ত্রীরোগ চিকিৎসক সুপ্রতিম বিশ্বাস, আ্যনাস্থেশিয়া রাতুল কুন্ডু এবং দ্বৈপায়ন ঝাকে নিয়ে তৈরি তিন চিকিৎসকের দল।

কাবীরের স্বামী নভোনীল মণ্ডল জানান, বছর সাতেক আগে তাদের প্রথম সন্তান জন্ম নিয়েছিল আমেরিকায়। তখন তারা এই পদ্ধতির কথা জানতে পারেন। তিনি বলেন প্রায় ৮০ ভাগ যন্ত্রণা কম এই পদ্ধতিতে। এই প্রক্রিয়া কলকাতার কোথায় হয় ,সে খোঁজ করতে গিয়ে দেখেছি, বেশির ভাগ চিকিৎসকই পিছিয়ে যান। যার মুল কারণ একটানা কয়েক ঘণ্টার জন্য চিকিৎসক আটকে থাকতে চান না।

সন্তানের জন্মদানের দু’দিনের মাথায় সুস্থ কাবেরী বলেছেন, প্রায় প্রসব যন্ত্রণা কিছুই বুজতে পারিনি। মাসিক এর সময় তলপেটে যেভাবে ব্যাথা করে ঠিক তেমনি হয়েছিল।

ইএসআই ইনস্টিটিউট অব পেন ম্যানেজমেন্টের কোর্স ডিরেক্টর, চিকিৎসক সুব্রত গোস্বামী বলেছেন, এটা নতুন পদ্ধতি নয়। ১৮৫৩ সালে কুইন ভিক্টোরিয়া অষ্টম গর্ভের সন্তান লিওপোল্ডের জন্মের সময় এই পদ্ধতি প্রথম প্রয়োগ করেন। পাশ্চাত্যে এখনও জনপ্রিয় এই যন্ত্রণাবিহীন প্রসব। যদিও একটানা নিয়োজিত থাকার অসুবিধার কারনেই এদেশে এই পদ্ধতির প্রসার হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.